‘আগুন লাগিয়ে সাবেক স্ত্রীকে জড়িয়ে ধরে বললেন, মরলে একসঙ্গে মরব’

এ সময় তামান্নার বর্তমান স্বামী ফরহাদ ও সাবেক স্বামী সাদ্দাম দগ্ধ হন।সোমবার (৯ মে) রাতে গ্রেফতারের পর সাবেক স্বামী দগ্ধ সাদ্দাম হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদে এ

তথ্য জানা যায় বলে জানান পাটকেলঘাটা থানার ওসি কাঞ্চন কুমার রায়।গ্রেফতার শেখ তুহিন হোসেন (২৪) পাটকেলঘাটার বড় কাশিপুর গ্রামের শেখ আব্দুল আলালের ছেলে ও মালয়েশিয়া প্রবাসী সাদ্দাম হোসেন কলারোয়া থানার তুলসীডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা।

এদিকে পাঁচ দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন থেকে সোমবার রাত ১১টার দিকে মৃত্যু হয় দগ্ধ গৃহবধূ তামান্নার।এ ঘটনায় অভিযুক্ত সাবেক স্বামীসহ দুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।নিহত তামান্না মারা যাওয়ার আগে যারা তাকে পেট্রল ঢেলে আগুন দিয়েছিল, তাদের নাম উল্লেখ করে পুলিশের কাছে জবানবন্দি দিয়ে গেছেন।পাটকেলঘাটা থানার ওসি আরও বলেন, এ ঘটনায় তামান্নার বর্তমান স্বামী ফরহাদ ও সাবেক স্বামী সাদ্দাম দগ্ধ হন।

সাদ্দাম হোসেনকে এ কাজে সহযোগিতা করেছেন আরও পাঁচজন। পুলিশ অন্য অভিযুক্তদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রেখেছে।পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফেসবুকের মাধ্যমে প্রেমের পর দুই বছর আগে ভিডিও কলের মাধ্যমে তামান্না ও সাদ্দামের বিয়ে হয়। পরে তারা কখনো একত্রে থাকেনি। সাদ্দাম হোসেন মালয়েশিয়ায় ছিলেন। কখনো তামান্নার বাড়িতে আসেননি। তামান্না দুবার স্বামী সাদ্দাম হোসেনের বাড়িতে গিয়েছিলেন।

এক বছর আগে তামান্না সাদ্দামকে তালাক দিয়ে শহরের পুরাতন সাতক্ষীরা এলাকার ফরহাদ হোসেনের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন। একপর্যায়ে গত ১৫ এপ্রিল ফরহাদ ও তামান্না বিয়ে করেন।নিহত তামান্নার পরিবারের অভিযোগ, সাদ্দাম প্রতিশোধ নিতে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বড় কাশিপুর এলাকার কপোতাক্ষ নদীর পাড়ে তামান্নার গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন দেন। তাকে বাঁচাতে গিয়ে তার বর্তমান স্বামীও সামান্য দগ্ধ হন।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে তামান্নার সাবেক স্বামী সাদ্দামসহ ছয়জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা আরও তিনজনকে আসামি করে মামলা করেন। মামলা নম্বর-২।মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পাটকেলঘাটা থানার উপপরিদর্শক কৃষ্ণ পদ সমাদ্দার জানান, এ ঘটনায় ইতোমধ্যে মামলার দুই নম্বর আসামি তুহিন হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং এ মামলার প্রধান আসামি তামান্নার সাবেক স্বামী মালয়েশিয়াপ্রবাসী সাদ্দাম হোসেনকে রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ছাড়া বাকি আসামিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Check Also

উত্তেজক ট্যাবলেটসহ তিন নারী গ্রেফতার

বিপুল পরিমাণ উত্তেজক ট্যাবলেটসহ তিন নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাত দেড়টার দিকে সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *