রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাওয়া প্রসঙ্গে যা বললেন খালেদা জিয়ার বোন

গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং বিদেশ যাত্রা প্রসঙ্গে রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করবে না তার পরিবার।শুক্রবার খালেদা জিয়ার মেজ বোন সেলিমা ইসলাম গণমাধ্যমকে পারিবারিক সিদ্ধান্ত জানিয়ে এই মন্তব্য করেন।

এর আগে শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, ‘খালেদা জিয়া একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। সে হিসেবে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইতে পারেন। রাষ্ট্রপতি তাকে ক্ষমা করে দিলেই তো তিনি বিদেশে যেতে পারেন। ’

আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতার এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে খালেদা জিয়ার মেজ বোন সেলিমা ইসলাম বলেন, ‘খালেদা জিয়া জলে পড়ে যাননি যে তাকে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। প্রয়োজনে খালেদা জিয়া মারা যাবে, তবুও রাষ্ট্রপতির কাছে পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদন করব না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার ক্ষমতার অতিরিক্ত অপব্যবহার করছেন। তিলে তিলে মারতে চাইছেন খালেদা জিয়াকে। আমরা এর বিচারের ভার দেশের সাধারণ মানুষের ওপর ছেড়ে দিলাম। ’

আওয়ামী লীগ নেতাদের বক্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘কথায় আছে না হাতি গর্তে পড়লে চামচিকাও লাথি মারে-এখন অবস্থা এমন হয়েছে। ওরা ভুলে যায় খালেদা জিয়া ৯ বছর স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলন করে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন। মানুষকে সম্মান করতে জানেন না আওয়ামী লীগের নেতারা।’

খালেদা জিয়ার বোন সেলিমা ইসলামের মতই একইসুরে কথা বলেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গণমাধ্যমের কাছে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতারা কে কি বললো আমরা তা নিয়ে ভাবছি না। আমরা চেয়ারপারসনের মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে যে কর্মসূচি পালন করে আসছি তা অব্যাহত রাখব।’রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমাভিক্ষা করার প্রশ্নই ওঠে না মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমরা মনে করি চেয়ারপারসনের বিরুদ্ধে যে মামলা এবং মামলার রায় পুরোটাই রাজনৈতিক উদ্দেশে

Check Also

২ সন্তান মিলে মাকে হত্যা, প্রচার করেন আত্মহত্যা

ফুলজান ভানুর (৭০) স্বামী মারা গেছেন ২৮ বছর আগে। ছেলেদের সঙ্গেই থাকতেন। দুই মাস আগে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *